মাওলানা শাহ মুহাম্মাদ তৈয়্যব’র ইন্তেকালে মুফতী আব্দুল হালীম বোখারীর গভীর শোক

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মাহবুবুল মান্নান

জামিয়া আরাবিয়া জিরির মুহতামিম মাওলানা শাহ মুহাম্মাদ তৈয়্যব রহ.-এর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন আল-জামিয়া আল-ইসলামিয়া পটিয়ার মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস মুফতী আব্দুল হালীম বোখারী।

জামেয়া পটিয়ার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সেই শোকবার্তায় মুফতী আব্দুল হালীম বোখারী বলেন, মাওলানা শাহ মুহাম্মাদ তৈয়্যব সাহেব রহ. ছিলেন বহু গুণে গুণান্বিত একজন বুজুর্গ ব্যক্তিত্ব। তিনি ছিলেন কওমী অঙ্গনের একজন যোগ্য অভিভাবক। তাঁর সঠিক দিকনির্দেশনায় পরিচালিত হতো এদেশের বহু দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তিনি আমাদের জামিয়া পটিয়ার মজলিসে শুরার সক্রিয় ও গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন। বিভিন্ন জটিল ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে তাঁর সিদ্ধান্ত আমাদের জন্য বড় সহায়ক ছিলো। তাঁর মৃত্যুতে জামিয়া পটিয়া সহ দেশের অনেক দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একজন যোগ্য অভিভাবক হারিয়েছে।

মুফতী আব্দুল হালীম বোখারী আরো বলেন, মাওলানা শাহ মুহাম্মাদ তৈয়্যব জামিয়া পটিয়ার বার্ষিক ইসলামী মহা সম্মেলনে প্রতি বছর তাশরীফ আনতেন। তাঁর ওয়াজ-উপদেশে উপকৃত হতো দেশ ও জাতি। তাঁর অসাধারণ গাম্ভীর্যপূর্ণ ওয়াজ-নসীহতে সকলেই অনুপ্রাণিত হতো। তাঁর আন্তরিকতাপূর্ণ দু’আয় সকলের চোখ অশ্রু সিক্ত হতো। তাঁর আবেগী আলোচনায় আবেগাপ্লুত হতো অসংখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান। তাঁর হেদায়াতি আলোচনায় পথ খুঁজে পেতো অসংখ্য পথহারা মানব সন্তান। তাঁর নূরানী চেহরা দেখে মুগ্ধ হতো যে কেউ। তাঁর মৃত্যুতে যে শূন্যতা তৈরি হয়েছে, তা কিছুতেই পূরণ হবার নয়।

আমরা মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং তাঁর শোকাহত পরিবার-পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। মহান আল্লাহ তাঁর খেদমাতগুলো কবুল করুন, তাঁর স্মৃতি বিজড়িত প্রতিষ্ঠানের হেফাজত করুন এবং ভুল-ক্রটিগুলো ক্ষমা করে জান্নাতুল ফিরদাউসের উচ্চ মকাম দান করুন, আমীন।