নৌকাডুবি: আরও ৫ লাশ উদ্ধার, এখনো নিখোঁজ ৬

সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার স্থলচর ইউনিয়নে যমুনা নদীতে যাত্রীবোঝাই নৌকাডুবির ঘটনায় আরও পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ নিয়ে শিশুসহ ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হলো।

বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ওই পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ওই পাঁচজনের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি হলেন- মানিকগঞ্জ জেলার সিঙ্গাইর থানার গোবিনহারা গ্রামের নূর মোহাম্মদের ছেলে আলোক মিয়া (৩০)।

এ ঘটনায় এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অন্তত ছয় যাত্রী।

চৌহালীর ইউএনও দেওয়ান মওদুদ আহমেদ, থানার ওসি রাশেদুল ইসলাম বিশ্বাস ও এনায়েতপুর থানার ওসি মোল্লা মাসুদ পারভেজ জানান, বৃহস্পতিবার সকালে যমুনা নদীর চৌহালী উপজেলার আজিমুদ্দিন মোড়, হাসপাতালঘাট, ঘুষুরিয়া ও স্থলচর ইউনিয়নের চালুহারা এলাকায় নদীতে পাঁচটি লাশ ভেসে ওঠে। এলাকাবাসী তাদের মরদেহ উদ্ধার করে পাড়ে নিয়ে আসেন।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার এনায়েতপুর থেকে ৭৩ যাত্রী নিয়ে নৌকাটি চৌহালীর দিকে যাচ্ছিল। নৌকাটি স্থলচর এলাকায় পৌঁছলে ঝড়ো বাতাসের কবলে পড়ে ডুবে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই শিশুসহ দুজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরে আরও তিনটি মরদেহ উদ্ধার হয়। এ ছাড়া মঙ্গলবার জীবিত অবস্থায় আরও ৫৭ যাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। এ দুর্ঘটনায় বর্তমানে নিখোঁজ রয়েছেন আরও সাত যাত্রী।