‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক সেমিস্টার ফি মওকুফের দাবি’

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক সেমিস্টার টিউশন ফি মওকুফের দাবি জানিয়েছে ছাত্র ইউনিয়ন।

একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে দরিদ্র শিক্ষার্থীদের যথাসম্ভব পাশে দাঁড়ানোর আহ্বানও জানিয়েছে বামপন্থী এ সংগঠনটি।

শনিবার এক বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল ও সাধারণ সম্পাদক অনিক রায় যৌথ বিবৃতিতে বলেন, দেশে অঘোষিত লকডাউন চলছে। আক্রান্ত ৮ হাজার ছাড়িয়েছে। মারা গেছে দেড়শতাধিক মানুষ। এ অবস্থায় শ্রমজীবী- নিম্নআয়ের- মধ্যবিত্ত- নিম্নমধ্যবিত্ত মানুষ রয়েছে চরম বিপাকে। গার্মেন্টস শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ করছে, ত্রাণ না পেয়ে আর অনাহারে দিন কাটাতে না পেরে বিক্ষোভ করছে সাধারণ মানুষ, কৃষক পাচ্ছে না তার উৎপাদিত পন্যের ন্যায্য মুল্য, কৃষক ধান কাটতে না পেরে হতাশায় ভুগছে, পরিবারের উপার্যনক্ষম ব্যাক্তির প্রায় ২ মাস অফিস বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছে মধ্যবিত্ত পরিবার।

ছাত্র ইউনিয়নর দপ্তর সম্পাদক ফয়জুর মেহেদী স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় আরও বলেন, দেশে ঠিক তখন চলছে চাল আর তেল চুরির মহোৎসব। সেই মুহূর্তে মরার উপর খাড়ার ঘায়ের ন্যায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে অনলাইনে টিউশন ফি পরিশোধের কথা বলছে যা চূড়ান্ত পর্যায়ে অমানবিক ও মুনাফাখোর ব্যবসায়ীদের বৈশিষ্ট্য। তারা যুক্তি দেখাচ্ছেন শিক্ষক ও কর্মচারীর বেতন দিতে হবে।

তারা বলেন, ২০১৮ সালের অর্থবছরের ইউজিসি কর্তৃক প্রকাশিত বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়-ব্যয় হিসেবে উদ্বৃত্ত অর্থ দ্বারা সকল শিক্ষক ও কর্মচারীর বেতন স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের অনায়াসে দেয়া সম্ভব।

এছাড়াও তারা অনলাইন ক্লাসের বিষয়ে বলেন, অধিকাংশ শিক্ষার্থী মফস্বল শহর থেকে আসেন আর সেখানে মোবাইল নেটওয়ার্কের অবস্থা ধীরগতি সম্পন্ন এবং মোবাইল নেটওয়ার্ক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান সমূহ অত্যাধিক উচ্চমুল্যের বিনিময়ে যে সেবা প্রদান করে তা অতি নগন্য। এমতাবস্থায় অনলাইন ক্লাসের সুফল শিক্ষার্থীরা কতটুকু পাবে তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করে সংগঠনটি।

Previous post মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী প্রবাসীর খাদ্য সহায়তা; ভূয়সী প্রশংসা মালেশিয়ান পুলিশের
Next post সিলেটে ত্রাণের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো সড়ক অবরোধ, মেয়রের আশ্বাসে প্রত্যাহার