একাত্মতা প্রকাশ; ফিলিস্তিনের পক্ষ হয়ে তুরস্কের পাশে থাকবে বাংলাদেশ

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলুর সাথে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেনের বৈঠকে ফিলিস্তিনের অধিকার নিয়ে একাত্মতা প্রকাশ করা হয়। এ সময় ফিলিস্তিনের ন্যায়সঙ্গত অধিকারের পক্ষে বাংলাদেশের দৃঢ় অবস্থানের কথা তুলে ধরেন ড. মোমেন।

বৈঠকে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ ও তুরস্কের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। শিক্ষা বিনিময় ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদার করাসহ দু’দেশের জনগণের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি ওপর জোর দেন উভয় দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় দু’ দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন। দ্রুততম সময়ের মধ্যে উভয় দেশের সচিব পর্যায়ের ফরেন অফিস কনসালট্যাশন (এফওসি) এবং মন্ত্রীপর্যায়ের জয়েন্ট ইকোনমিক কমিশনের (জেইসি) বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন দু’দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এ ছাড়া বাংলাদেশকে আরো ভেন্টিলেটর ও মাস্কসহ করোনা চিকিৎসাসামগ্রী দেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বাংলাদেশে অবস্থানরত মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রত্যাবাসনে তুরস্ক সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে বলে জানান মেভলুত কাভুসোগলু। উন্নয়নশীল দেশগুলোর জোট ডি-৮ এর কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে উভয় দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একমত হন।