করোনা ইস্যু: ব্রিটেনে আরও একশ বিলিয়ন পাউন্ডের প্রণোদনা ঘোষণা

করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত অর্থনীতি ঘুরে দাঁড় করানোর পরিকল্পনায় যুক্তরাজ্যে আরও একশ’ বিলিয়ন পাউন্ডের আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করেছে ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড।

ব্রিটেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সুদের হার প্রায় শূন্যের ( ০.১%) কাছে রাখা হয়েছে। ব্রিটেনে সুদের হার এত কম রাখার নজির গত কয়েকশ’ বছরের মধ্যে নেই বলে জানিয়েছে বিবিসি।

করোনাভাইরাসের কারণে ব্রিটিশ অর্থনীতি বিশাল সংকটে আছে। কেবল গত এপ্রিল মাসেই ব্রিটিশ অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছে প্রায় ২০ শতাংশ। এবার যে মন্দা শুরু হচ্ছে, সেটির নজির সাম্প্রতিক ইতিহাসে নেই বলেই আশংকা করা হচ্ছে।

এর আগে আরও ২০০ বিলিয়ন পাউন্ডের আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করা হয়েছিল গত মার্চ মাসে।

ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড বলছে, সাম্প্রতিক সূচকগুলোতে ব্রিটিশ অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে বলে ইঙ্গিত মিলেছে। ব্যাংকটির মনিটারি পলিসি কমিটি বলেছে, মে এবং জুন মাসের ভোক্তা ব্যয়ের সঙ্গে পেমেন্টের ডাটা সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং আবাসন শিল্পের কার্যক্রমও সম্প্রতি আগের ধারায় ফিরতে শুরু করেছে।

ব্যাংক অফ ইংল্যান্ডের গভর্নর অ্যান্ড্রু বেইলি বলেছেন, অর্থনীতির অবস্থা অনিশ্চিত। আমরা এই অবস্থা চলতে দিতে চাই না। এটা পরিষ্কার হওয়া দরকার যে, আমরা এখনও অস্বাভাবিক সময়ে রয়েছি।

এর আগে, গত মাসে দেশটির কেন্দ্রীয় এই ব্যাংকের নীতি-নির্ধারকরা ব্রিটেনের অর্থনীতি আরও তীব্র মন্দার দিকে যাচ্ছে বলে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। জুন পর্যন্ত দেশের অর্থনীতি ২৫ শতাংশ পর্যন্ত সংকুচিত হতে পারে বলে পূর্বাভাষ দেয়া হয়েছিল।

তবে অর্থনীতির চাকা সচল ও হতে শুরু করায় এই সংকোচনের তীব্রতা কমে আসবে বলে জানিয়েছে ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড। অতিরিক্ত আর্থিক প্রণোদনায় ব্যাংকের সম্পদ ক্রয় কর্মসূচির আকার ৭৪৫ বিলিয়ন পাউন্ড বৃদ্ধি করবে।

ব্রিটেনে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৬৯ জন এবং মারা গেছেন ৪২ হাজার ২৮৮ জন।

করোনা নিয়ন্ত্রণে দেশটিতে দীর্ঘদিন ধরে কার্যকর থাকা লকডাউনে শিথিলতা এনে নতুন বেশ কিছু বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।