বাজেটে সরকারের নির্মমতা ফুটে উঠেছে: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, এবারের প্রস্তাবিত বাজেট একেবারে শুভঙ্করের ফাঁকি। বাজেটে ফুটে উঠেছে সরকারের নির্মমতা ও নির্দয়তা। বাজেট পাসের আগে মোবাইল থেকে টাকা কাটা শুরু হয়েছে। এখন সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ স্বাস্থ্যখাত। সে খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে গতানুগতিক। বিশেষভাবে কিছু করা হয়নি।

আজ বুধবার (১৭ জুন) প্রেস ক্লাবের সামনে ‘২০২০-২১ অর্থবছরে গতানুগতিক উচ্চবিলাসী অসামঞ্জস্যপূর্ণ বাজেট ভাবনা থেকে বেরিয়ে মানবকল্যাণে করোনা সঙ্কটকালীন যথাযথ এবং বাস্তবসম্মত বাজেট প্রত্যাশা’ শীর্ষক মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, করোনা মোকাবিলা করতে গিয়ে আমরা দুর্নীতির মহোৎসব দেখলাম। সরকারের অদক্ষতা দেখলাম। আজকে মাস্ক নেই, হাসপাতালে ভেন্টিলেটর নেই, অক্সিজেন নেই। এগুলো কিভাবে আনা যায়, অভাব পূরণ করা যায় তা বাজেটের মধ্যে নেই। এ বাজেট শুধুমাত্র মানুষকে বোকা বানানোর বাজেট।

তিনি বলেন, করোনা মোকাবিলার জন্য ৭১ শতাংশ হাসপাতলে করোনা সুরক্ষা নেই। সুরক্ষা সামগ্রী না থাকার কারণে চিকিৎসা বিঘ্নিত হচ্ছে। এ প্রস্তাবিত বাজেটের মধ্যে এর কোনো দিকনির্দেশনাও দেওয়া হয়নি। বাংলাদেশের হাসপাতালে করোনা মোকাবিলায় ৮৬ শতাংশ নার্সদের প্রশিক্ষণ থাকা দরকার ছিল। তাদের সেই প্রশিক্ষণ নেই।

তিনি আরো বলেন, প্রশিক্ষণের জন্য যা যা করা দরকার তাও বাজেটে নেই। বাজেটে মানুষ বাঁচানোর কোনো পদক্ষেপ নেই বরং মানুষ যাতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে সেই ব্যবস্থা করা হয়েছে। সত্যিকার অর্থে দেশে গণতন্ত্র থাকলে, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে, জবাবদিহিতা থাকলে সারা দেশে করোনায় সয়লাব হতো না।

Previous post ব্রাজিলে ২৪ ঘন্টায় প্রায় ৩৫ হাজার লোক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে
Next post ইউনাইটেড হাসপাতালের শীর্ষ ৪ কর্মকর্তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি