পাকিস্তানে বিমান বিধ্বস্ত ও বাংলাদেশ-ভারতে আমফানের আঘাতে নিহতের ঘটনায় বিএনপির শোক

পাকিস্তানের করাচি সংলগ্ন এলাকায় পিআইএর বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৯৯ জন আরোহীর মধ্যে ৯৭ জনের নিহত হওয়ার ঘটনা এবং বাংলাদেশসহ ভারতের সবচেয়ে বিপর্যস্ত রাজ্য পশ্চিমবঙ্গের কোলকাতা, চব্বিশ পরগণা ও দক্ষিণবঙ্গ এবং অন্যান্য রাজ্যে সুপার সাইক্লোন আমফানের তাণ্ডবে অনেক মানুষের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক শোকবার্তায় বলা হয়- পাকিস্তানের জাতীয় এয়ারলাইন্সের বিমান দুর্ঘটনায় যাত্রী ও ক্রুসহ ৯৭ জনের মৃত্যু অত্যন্ত বেদনাদায়ক। করোনাভাইরাসের অভিঘাতের ওপর এই দুর্ঘটনা পাকিস্তানের জনগণের জন্য মর্মস্পর্শী। হৃদয়বিদারক এই দুর্ঘটনায় শোক জানানোর ভাষা জানা নেই। নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি, আল্লাহ যেন তাদেরকে এই শোক সইবার ক্ষমতা দান করেন। দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণকারী যাত্রী ও ক্রুদের রূহের মাগফিরাত এবং যে দুজন যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন তাদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

শোকবার্তায় বলা হয়- সুপার সাইক্লোন আমফানের কারণে বাড়িঘর, নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ফসলের ক্ষেত ভেসে যাওয়া, এলাকার পর এলাকা ধ্বংস হয়ে যাওয়া এবং যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়াই নয়, এই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে বাংলাদেশসহ ভারতের অনেক মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোলকাতা, চব্বিশ পরগণাসহ দক্ষিণবঙ্গে প্রলয়ঙ্কারী এই ঘূর্ণিঝড় সবচেয়ে বেশি আঘাত হেনেছে। পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতের অন্যান্য রাজ্যে ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ অতিদ্রুত তাদের এই বিপর্যস্ত অবস্থা কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবেন এবং সেসব এলাকায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রা অতিদ্রুত ফিরে আসবে বলে আশা রাখি। এক্ষেত্রে ভারতের কেন্দ্রীয় ও পশ্চিমবঙ্গ সরকার ঘূর্ণিঝড়কবলিত পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণাঞ্চলসহ অন্যান্য রাজ্যে মানুষের পুনর্বাসনে যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তা প্রশংসনীয়। ঘূর্ণিঝড়ে নিহতদের আত্মার শান্তি এবং যারা আহত হয়েছেন তাদের সুস্থতা কামনা করছি।

Previous post এবার দিল্লীর দিকে এগোচ্ছে ভয়ঙ্কর পঙ্গপাল! যা পাচ্ছে তাই সাবাড় করছে
Next post করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন কাউন্টার টেররিজমের ইন্সপেক্টর রাজু