আয়াসোফিয়ায় নামাজের মাধ্যমে লুজান চুক্তির প্রতিশোধ নিলেন এরদোগান!

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নাহিয়ান হাসান


আয়াসোফিয়ায় ২৪ জুলাই নামাজের মাধ্যমে লুজান চুক্তির প্রতিশোধ নিলেন এরদোগান। খবর ফ্রেঞ্চ দৈনিক পত্রিকা লে মন্ডের।

শত বছর পর লুজান চুক্তির প্রতিশোধ শিরোনামে করা লে মন্ডের প্রতিবেদনে বলা হয়, উত্তর আফ্রিকা ও ভূমধ্যসাগরে চলমান কৌশলগত লড়াইয়ের দিক পরিবর্তনের উদ্দেশ্যে একটি অবিস্মরণীয় সমঝোতা চুক্তি করার জন্য তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান ও লিবিয়ার প্রধানমন্ত্রী ফয়েজ আল-সাররাজের প্রয়োজন ছিল একটি গৌরবময় এবং ঐতিহাসিক স্থানের।

এক্ষেত্রে ইস্তাম্বুলের দোলমাবাহচে প্রাসাদটি ছিল একটি আদর্শ স্থান। গত বছর থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সেখানে এরদোগান ও সাররাজের মাঝে সমঝোতা চুক্তির ব্যাপারে প্রায় ৪টি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে

লিবিয়ায় সেনা ও সামরিক রসদ সহায়তার বিপরীতে ত্রিপোলির সরকার পূর্ব ভূমধ্যসাগরে আঙ্কারার স্বার্থ রক্ষার উদ্দেশ্যে তাদের একটি সমুদ্রসীমা নীতি মেনে নিয়েছে।

বিগত বছরের ১৬ ডিসেম্বর এরদোগান-সাররাজের দ্বিতীয় বৈঠক শেষে এরদোগান বলেছিলেন, এই সামরিক সহায়তা চুক্তির বদৌলতে আমরা লুজান চুক্তিকে অকার্যকর করে দিয়েছি।

ফ্রেঞ্চ দৈনিক লে মন্ডে এরদোগানের এই বক্তব্যকে লুজান চুক্তির প্রতিশোধ রূপে গণ্য করেছে। তাছাড়া তাদের তথ্যমতে, সিরিয়া সংলগ্ন সীমান্ত এলাকায় আমেরিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমর্থনপুষ্ট ওয়াইপিজি/পিকেকে(YPG/PKK) সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাওয়া হল, এরদোগান ও তার অতি ঘনিষ্ঠ বন্ধু কর্তৃক নতুন লুজান চুক্তি এড়ানোর ধুরন্ধর কৌশল!

এছাড়াও সংবাদপত্রটিতে বলা হয়, পুনরায় মসজিদ রূপে আয়াসোফিয়ার যাত্রা শুরু করতে জুলাইয়ের ২৪ তারিখের দিনটিকে বেছে নেওয়াও সাধারণ কোনো বিষয় নয় বরং এটি ছিল এরদোগান সরকারের পূর্বপরিকল্পিত। কারণ,মসজিদ হিসেবে যাত্রা শুরুর এই দিনটি ছিল অপরদিক দিয়ে লুজান চুক্তির ৯৭তম বর্ষ পূর্তির দিন।

সূত্র: টিআরটি উর্দু