কাশ্মীরের হুররিয়াত নেতা সাইয়্যেদ আলী শাহ গিলানি অসুস্থ, আন্দোলনের ভয়ে শঙ্কিত ভারত

ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০ । সোহেল আহম্মেদ



৯০ বছর বয়সী কাশ্মীরের হুররিয়াত কনফারেন্সের নেতা সাইয়্যেদ আলী শাহ গিলানির স্বাস্থ্যের অবনতি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে তাঁর মৃত্যু হলে তাঁর অনুসারীরা আন্দোলনের জনসমুদ্র গড়ে তুলবে ভেবে ভারত সরকার শঙ্কিত হয়ে অতিরিক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) গিলানির নেতৃত্বে কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী দলগুলির একটি জোট অল পার্টিস হুরিয়াত সম্মেলন থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে গিলানির অবনতিশীল স্বাস্থ্যের অবস্থা নিশ্চিত করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়ে, এক দশকেরও বেশি সময় ধরে অবরুদ্ধ করে রাখা স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করেছে। সাধারণ শারীরিক দুর্বলতা ছাড়াও তার বুকের ইনফেকশনের চিকিৎসার সন্তোষজনক ফল পাওয়া যাচ্ছেনা।

ডেইলি ইকোনমিক টাইমস অনুসারে জনপ্রিয় এ নেতার মৃত্যুর পর কি ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে তা নিয়ে ইতিপূর্বে পরিকল্পনা করেছে ভারত সরকার। কারণ গিলানির জানাজায় তার সমর্থকরা এতো পরিমানে অংশগ্রহণ করবে যে এটি জনসমুদ্রে পরিণত হবে এবং ভারত সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ আরো জোরদার হবে।

জানা গেছে, কাশ্মীরের ঝুঁকিপূর্ণ জায়গাগুলিতে অতিরিক্ত ভারতীয় সেনার মোতায়েনও করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গিলানি ২০১০ সাল থেকে ভারত শাসিত জম্মু ও কাশ্মীরের গ্রীষ্মের রাজধানী শ্রীনগরের হায়দারপোড়া এলাকায় গৃহবন্দী রয়েছেন। তাকে কেবলমাত্র জরুরি চিকিৎসার জন্য বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। হৃদরোগ, বুকের জটিলতা এবং প্রস্টেটের সমস্যাসহ অনেকগুলি রোগে ভুগছেন গিলানি। ইনফেকশনের কারণে তার একটি কিডনিও কেটে ফেলা হয়েছে।


সূত্র: ডেইলি ইকোনমিক টাইমস ও আনাদোলু এজেন্সি।