নির্দেশনা অমান্য করে মেয়ের বিয়ে দিলেন সিভিল সার্জন

সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সিভিল সার্জন মো. শাহ আলম ঘটা করে দিলেন নিজের চিকিৎসক মেয়ের বিয়ে। এ নিয়ে জেলাজুড়ে চলছে আলোচনার ঝড়।

গতকাল শুক্রবার (২০ মার্চ) জেলা শহরের দাতিয়ারায় ফারুকী পার্ক সংলগ্ন জেলার সরকারি কর্মকর্তাদের ডরমেটরিতে থাকা নিজের সরকারি বাসভবনে এ বিয়ের আয়োজন করেন সিভিল সার্জন।

বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেন- চিকিৎসক ফৌজিয়া আক্তার, চিকিৎসক সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, চিকিৎসক মোহিনী বেগম হবিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক আজহারুর রহমান ও খোকন দেবনাথ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন ক্লিনিকের দন্ত চিকিৎসকদের একটি দল, বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের কয়েকজন কর্মচারী ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিভিল সার্জন শাহ আলম বলেন, এক মাস আগেই বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার মেয়ের গায়ে হলুদ ছিল। এখন আমি বাবা হয়ে কীভাবে মেয়ের বিয়ে বন্ধ করে দেই? কোনো আয়োজন ছাড়াই স্বল্প পরিসরে বিয়ে হচ্ছে। পরিবারের অনেক সদস্যকে দাওয়াত দিতে পারিনি।

জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন সাংবাদিকদের জানান, বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ নেব। করোনা ভাইরাসের জন্য জনসমাগম এড়িয়ে চলার জন্য সরকারের নির্দেশনা রয়েছে। কেউই জবাবদিহিতার ঊর্ধ্বে নয়।