কর্মস্থলে নেই জনপ্রতিনিধিরা, নিশ্চিত হচ্ছে না হোম কোয়ারেন্টাইন

করোনাভাইরাস সংক্রামণ রোধে বিদেশ ফেরত নাগরিকদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা বাধ্যতামূলক। কিন্তু স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের অনেক জনপ্রতিনিধি নিজ নির্বাচনী এলাকা ও কর্মস্থলে অবস্থান না করায় হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে জনপ্রতিনিধিদের কাছে পাঠানো অফিস-আদেশ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

‘করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কর্মস্থলে অবস্থান’ বিষয়ের অফিস আদেশে বলা হয়েছে- লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমূহের (সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদ) জনপ্রতিনিধিরা (মেয়র/কাউন্সিলর/চেয়ারম্যান/ভাইস চেয়ারম্যান/সদস্য) অনেকেই নিজ নির্বাচনী এলাকা বা কর্মস্থলে অবস্থান করেন না। ফলে বিদেশ প্রত্যাগত নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টাইন বিষয়টি নিশ্চিত করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং গঠিত কমিটিকে সার্বিক সহায়তা প্রদানে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এমতাবস্থায়, বিদেশ প্রত্যাগত নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি নিশ্চিত করাসহ করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আবশ্যিকভাবে নির্বাচনী এলাকা বা কর্মস্থলে অবস্থান করে স্বাস্থ্য বিভাগ এবং স্থানীয় প্রশাসনকে সার্বিক সহায়তা দেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে অফিস আদেশে।

Previous post করোনা ভাইরাস; রোববার থেকে ভারতজুড়ে কারফিউ জারি
Next post করোনাভাইরাস: মালয়েশিয়ায় গৃহবন্দি ৬ লাখ বাংলাদেশি