কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহবায়ক সোহেলের উপর সন্ত্রাসী হামলা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া ছাত্রদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক এপিএম সোহেলের উপর হামলা চালিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা।

বুধবার (২৩ মে) বিকেল ৩টার দিকে পরীক্ষা শেষ করে বাসায় ফেরার সময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালঢয়র মূল ফটকের সামনে হামলার শিকার হন। আহত সোহেল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র।

গুরুতর আহত অবস্থায় তিনি এখন রাজধানীর গেন্ডারিয়া আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। একই বিভাগে অধ্যয়নরত সোহেলের বন্ধু সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা দুজন পরীক্ষা শেষ করে বের হচ্ছিলাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটে আসলে ১০/১২ জনের একটি দল কথা বলার জন্য সোহেলকে ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের পাশে নিয়ে যায়। সোহেল প্রথমে যেতে চাইছিলো না। পরে তারা জোর করে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে বেধড়ক মারধর করে।’

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক নাজমুল হাসান সোহগ বলেন, ‘আমরা বিষয়টি শুনেছি। সোহেল শুরু থেকে আন্দোলনের সাথে ছিল। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের পক্ষ থেকে কয়েকজন তাকে দেখতে গিয়েছে। কমিটির পক্ষ থেকে আমরা এই সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’

ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক রাইসুল ইসলাম নয়ন বলেন, আহত সোহেল আমাদের কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম-আহ্বায়ক। বিকেল ৩টার দিকে তার উপর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘রড ও লাঠির আঘাতে সোহেলের ঠোঁট ও নাক ফেটে গেছে। তাছাড়া পা ও পিঠে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঠোঁটে পাঁচটি সেলাই করা হয়েছে। সে এখন একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি আছে।’

নয়ন আরও জানান, কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়ার কারণেই তার উপর হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। আমরা এ হামলা নিন্দা জানাচ্ছি এবং দ্রুত হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি করছি।