রোহিঙ্গা মুসলিমদের নিজ দেশে নিতে চায় কানাডা সরকার

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট 


মায়ানমারে সে দেশের সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের হাতে গণহত্যার শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা মুসলিমদের কানাডা সরকার আশ্রয় দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে বলে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী চেরিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড। তবে কী পরিমাণ শরণার্থী আশ্রয় দিবেন তা পরিষ্কার করে জানাননি তিনি। আশ্রয়ের বিষয়ে অন্য দেশ ও জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি। খবর ডেইলি সাবা

এ সময় তিনি  মিয়ানমারের মানবাধিকার লঙ্গনের পেছনে যারা দোষী তাদের বিচারের দাবিও জানিয়েছেন।

গত আগস্টে মায়ানমারের আরাকানে দেশটির সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের দ্বারা শুরু হওয়া অত্যাচার নিপীড়নের শিকার হয়ে সাত লাখেরও বেশি সংখ্যালগু রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে অবস্থান করছে।

মন্ত্রী কত শরণার্থী নেয়া হবে পরিস্কার না করে বলেন, জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে পুর্নবাসনের কথা বলেন। মিয়ানমার এবং বাংলাদেশ রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের মিয়ানমার নভেম্বরে ফেরত দেয়ার জন্য কথা থাকলেও বর্তমানে এ প্রক্রিয়া স্থগিত রয়েছে। উভয়পক্ষ বিলম্বের জন্য একে অপরকে দোষারোপ করছে।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং লঙ্ঘনের জন্য যারা দোষী সাব্যস্ত মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের জন্য দায়ী তাদের বিচারের জন্য অটোয়া আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের সঙ্গেও কাজ করবে।

তিনি বলেন, এই অত্যাচারের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বুঝতে হবে যে তারা বিচারের মুখোমুখি হবে, বিশ্ব সম্প্রদায় দেখছে। সেখানে তাদের লুকানোর জায়গা থাকবে না।